বুধবার, ২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং খ্রিষ্টাব্দ, ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দাঁড়ি রাখার কারণে এক উইঘুর মুসলিমের জেল অতঃপর বর্বর নির্যাতনে মৃত্যু

প্রকাশিত : ৫ নভেম্বর, ২০১৮

দাঁড়ি রাখার কারণে এক উইঘুর মুসলিমের জেল অতঃপর বর্বর নির্যাতনে মৃত্যু

চীনে দাঁড়ি রাখার কারণে এক মুসলিম বৃদ্ধকে জেলে পাঠায় দেশটির পুলিশ। বৃদ্ধ করিম তাওরান (৮০) একজন উইঘুর মুসলিম ছিলেন।
দাঁড়ি রাখার কারণে প্রায় এক বছর তাকে জেলে বন্দী করে রাখে চীনা পুলিশ। পাশাপাশি তাওরানের আরেকটি অপরাধ ছিল তার আত্মীয়স্বজনের অবস্থান ছিল চীনের বাহিরে। এই দুই কারণে তাকে জেলে চরম অমানবিক নির্যাতনে শিকার হতে হয়। জেলে তাকে টিক মত খাবার ও ঘুমের ব্যবস্তা করে দেওয়া হতনা। তাওরান জেলের মধ্যেই দুর্বল হয়ে পড়েন। অতঃপর তাকে মুক্তি দেওয়া হয়ন কিন্তু জেলে রোগে কাহিল হওয়ার কারণে বের হওয়ার কয়েকদিনের মধ্যে মৃত্যু বরণ করেন। ইন্নালিল্লাহি……………রাজিউন

সূত্রঃআখবারুল আ’লামিল ইসলামিয়্যি

আরো পড়ুন……

এবার নিকাব নিষিদ্ধ মিশরে!

নিকাব নিষিদ্ধের উদ্যোগ নিয়েছে মিশরের সরকার। মিশরের কিছু সংসদ সদস্য নিরাপত্তার জন্য হুমকি তাই জনসমাগমের স্থানে নিকাব পরিধানে নিষিদ্ধের প্রস্তাব পেশ করেছে। কয়েকদিন আগে সংসদ সদস্যরা এই প্রস্তাব করেছেন।

ইতোমধ্যে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহকারী চেয়ারম্যান গাঃ আগামী হিজাব নিষিদ্ধ করে একটি আইনের খসড়া সংসদে উত্থাপন করা হয়েছে।

হিজাব নিষিদ্ধের যে আইন করা হয়েছে তাতে বলা হয়েছে মিশরের কোন নারী জনসমাগমে মুখ ঢেকে রাখলে ১ ০০০ মিশরীয় পাউন্ড জরিমানা করা হবে।

মিডল ইস্ট মনিটর

আরো পড়ুন……

তাজমহল মসজিদে শুক্রবার ব্যতীত নামাজ আদায়ে নিষেধাজ্ঞা!
মুসলমানরা শুক্রবার ছাড়া তাজমহলের প্রাঙ্গনে অবস্থিত মসজিদে নামাজ আদায় করতে পারবেন না।

ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ কর্তৃক জারি করা নির্দেশনা অনুযায়ী, মুসলমানরা কেবলমাত্র শুক্রবারে তাজমহল মসজিদে নামাজ পড়ার অনুমতি পাবে। আর শুক্রবার যে নামাজ পড়া যাবে, তাতে শুধু স্থানীয়রাই অংশ নিতে পারবেন।

ভারতের সুপ্রীম কোর্টের আদেশ অনুসারে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে, নিরাপত্তার স্বার্থে মসজিদে বহিরাগতরা শুক্রবারের নামাজ পড়তে পারবে না বলে গত জুলাইয়ে স্থানীয় প্রশাসন যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল, তা বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্ট। তারা সুপ্রিম কোর্টের রায় বাস্তবায়ন করেছে মাত্র। এএসআই স্থানীয় দৈনিক টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে বলেন।

মসজিদের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সৈয়দ ইব্রাহিম হোসেন জাইদী এই সিদ্ধান্তটিকে “মুসলিম বিরোধী” পদক্ষেপ বলে অভিহিত করেছেন।

“জাইদি” আরও বলেন, আদেশটি অবৈধ এবং আপনি নামাজ পড়ার জন্য বাসিন্দাদের নিষেদ্ধ করতে পারেন না।

দৈনিক টাইমস অফ ইন্ডিয়া

X